News Section:

বানিয়াচংয়ে নৌ-চলাচলের সুবিধা না রেখে অপরিকল্পিত ব্রিজ নির্মাণ

হবিগঞ্জের বানিয়াচং উপজেলার আতুকুড়া-কবিরপুর সড়কের সাতাই নদীতে বর্ষাকালে নৌ-চলাচলের সুবিধা না রেখে অপরিকল্পিতভাবে ব্রিজ নির্মাণকে কেন্দ্র করে এলাকাবাসীর মধ্যে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছে। উত্তেজিত জনতার তোপের মুখে কর্তৃপক্ষ অবশেষে নির্মাণ কাজ বন্ধ করেছে। গত ২২ ডিসেম্বর সাতাই নদীতে এলজিইডির অধীনে ৯৯ মি. পিএসসি গার্ডার ব্রিজের নির্মাণ কাজ শুরু করা হয়। হবিগঞ্জ-২ আসনের এমপি অ্যাডভোকেট আবদুল মজিদ খান এলাকাবাসীর পরামর্শ নিয়ে এ ব্রিজ নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। ইতোমধ্যে ব্রিজের সব পিলারের নির্মাণের কাজ শেষ হয়ে গেছে। কিন্তু ব্রিজের পিলারগুলোর যে উচ্চতা দেয়া হয়েছে তাতে করে বর্ষা মৌসুমে সাতাই নদী দিয়ে নৌকা চলাচল বাধাগ্রস্ত হবে। ফলে নদী পথে বর্ষাকালের যাতায়াত অসম্ভব হয়ে পড়বে। এ বিষয়টি আতুকুড়া বাজারের ব্যবসায়ীসহ এলাকাবাসী স্থানীয় এমপি আবদুল মজিদ খানকে অবহিত করলে তিনি তাদের সমাধানের আশ্বাস দেন।

গত বৃহস্পতিবার আতুকুড়া বাজারের ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসী ব্রিজ নির্মাণ কাজের স্থলে গিয়ে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে কাজ বন্ধ রাখার আহ্বান জানান। তৎক্ষণাৎ তারা উপজেলা প্রকৌশলী তরুণ ব্যানার্জীকে জানালে তিনি ব্রিজটির নির্মিত স্থান পরিদর্শন করেন। পরে তিনি সুবিদপুর ইউনিয়ন পরিষদ হলরুমে আতুকুড়া ও সুবিদপুর গ্রামবাসীর সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় মিলিত হন।

সভায় ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কাশেম চৌধুরীসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত থেকে বক্তৃতা করে অপরিকল্পিত ব্রিজ নির্মিত হলে এলাকাবাসীর যেসব সমস্যা হবে তা তুলে ধরেন এবং বর্ষাকালে যাতে নৌ-চলাচল করতে পারে সে ব্যবস্থা রেখে ব্রিজ নির্মাণের দাবি জানান। পরে উপজেলা প্রকৌশলী তরুণ ব্যানার্জী ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলাপ করে ব্রিজের নির্মাণ কাজ স্থগিত রাখতে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে নির্দেশ দেন।