News Section:

১১ হাজার হেক্টর জমির বোনা ধান নষ্ট হচ্ছে : বানিয়াচং হাওরে পানির অভাব সস্নুইসগেট খুলে দেয়ার দাবি

এই বর্ষাকালেও হাওরে পানি অভাবে হবিগঞ্জের বানিয়াচং উপজেলার ১০ হাজার ৫শ' হেক্টর জমির বোনা আমন ও ১৫ হেক্টর রোপা আমন ধান নষ্ট হতে চলেছে। এ অবস্থায় আবাদিরা ধান রক্ষার জন্য আজমিরীগঞ্জের পাহাড়পুর বাজারের কৈয়ারঢালা সস্নুইসগেট খুলে দেয়ার দাবি জানিযেছেন।

কৃষকরা গতকাল বৃহস্পতিবার জানান, এবার বর্ষার মাঝামাঝি সময়েও হাওরে পর্যাপ্ত পানি বৃদ্ধি না পাওয়ায় হাজার হাজার হেক্টর জমির বোনা আমন ও রোপা আমন ধান নষ্ট হওয়ার পথে রয়েছে। প্রাকৃতিকভাবে পানি না বাড়লেও বিকল্পভাবে হাওরে পানি বাড়ানোর ব্যবস্থা থাকলেও এ ব্যাপারে উপজেলা কৃষি অফিসের লোকজন কোন পদক্ষেপ নিচ্ছেননা।

অন্যদিকে বিভিন্ন এলাকার মৎস্যজীবীরা জানান, প্রাকৃতিকভাবে প্রতিবছরের মতো এবছর বর্ষার পানি না বাড়ায় হাওরে নতুন পানির মাছও পাওয়া যাচ্ছেনা। একারণে তারা বিপাকে পড়েছেন। এলাকার কৃষক ও মৎস্যজীবী সম্প্রদায়ের লোকজন আজমিরীগঞ্জের পাহাড়পুর বাজারের কৈয়ারঢালা সস্নুইসগেট খুলে দেয়ার দাবি করে জানান, পানি ছাড়লে চলমান কৃষি ও মৎস্য সংকট কাটিয়ে উঠা সম্ভব। তারা আরও জানান, এ ব্যাপারে বানিয়াচং উপজেলা কৃষি অফিস জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের সঙ্গে যোগাযোগ না করায় তারা হতাশ হয়ে পড়ছেন।

চতুরঙ্গরায়েরপাড়া গ্রামের কৃষক আফরোজ মিয়া, আলফু মিয়া, আশরাফুল মিয়া, দত্তপাড়া গ্রামের আবুল হোসেন, মিয়া হোসেন, নারায়ণ দেব নাদু, কালিকাপাড়া গ্রামের আঙ্গুর মিয়া, মিনাট গ্রামের জামাল মিয়া, শরীফখানী গ্রামের মানিক মিয়া, পাইকপাড়া গ্রামের আমিনুর রহমান, নন্দীপাড়া গ্রামের জায়েদ মিয়া, হাফিজুর রহমান, ভাদাউড়ি গ্রামের মকদ্দছ মিয়া, জাতুকর্ণপাড়া গ্রামের আবদুল আলীম, যাত্রাপাশা গ্রামের মহিবুর রহমান, মোশাহিদ মিয়াসহ বিভিন্ন এলাকার শতাধিক কৃষক ও মৎস্যজীবী এমন প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে তারা আমন ফসল রক্ষার্থে এ ব্যাপারে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বানিয়াচং-আজমিরীগঞ্জ নির্বাচনী এলাকার এমপি অ্যাডভোকেট আবদুল মজিদ খান এবং বানিয়াচং উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ইকবাল হোসেন খান ও ভাইস চেয়ারম্যান প্রিয়তোষ রঞ্জন দেবের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

উপজেলা কৃষি অফিসার মস্তোফা ইকবাল আজাদ জানিয়েছেন, সস্নুইসগেটে দিয়ে পানি ছাড়ার ব্যবস্থা করলে আমন ধান রক্ষা হবে_এমন তথ্য কৃষকদের পক্ষ থেকে এখনও লিখিতভাবে অফিসে জানানো হয়নি। জানালে পানি উন্নয়ন বোর্ডের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারতাম।

- See more at: http://www.sangbad.com.bd/index.php?ref=MjBfMDdfMTJfMTNfMV8xNl8xXzEzNjczNQ==#sthash.ypPzvulv.dpuf