News Section:

অলিম্পিকের পর্দা উঠছে কাল

লেখক: লন্ডন থেকে মোতাহের হোসেন মাসুম | বৃহস্পতিবার, ২৬ জুলাই ২০১২, ১১ শ্রাবণ ১৪১৯ >দৈনিক ইত্তেফাক.. দীর্ঘ চার বছরের প্রতীক্ষা শেষে আগামীকাল শুক্রবার লন্ডন অলিম্পিকের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হতে যাচ্ছে। গতকাল লন্ডন থেকে ১৩২ কিলোমিটার দূরে ওয়েলশে মেয়েদের ফুটবল মাঠে গড়ানোর মধ্য দিয়ে বাস্তবে অলিম্পিক শুরুই হয়ে গেল। যদিও আগামীকাল শুক্রবার বিখ্যাত পরিচালক ড্যানি বয়েলের পরিচালনায় ১০ হাজার পারফর্মারের অংশগ্রহণের মধ্য দিয়ে নজরকাড়া উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে সত্যিকারের সূচনা হবে দ্য গ্রেটেস্ট শো অন আর্থসের। স্লামডগ মিলিনিয়ার ছবি খ্যাত বয়েল বৃটিশ মিডিয়াকে জানিয়েছেন, এটা হবে স্রেফ ভিনগ্রহের মতো ব্যতিক্রমী ব্যাপার। আয়োজকরা যতটুকু জানিয়েছেন তাতে ধারণা করা হয় এতে ৮০ হাজার আসনের অলিম্পিক স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠেয় উদ্বোধনী আসরটি হবে পুরোপুরি বৃটিশ ধাঁচের এবং এতে বৃটেনের গ্রামীণ জীবনও প্রাধান্য পাবে। কয়েক বছরের প্রস্তুতি শেষে লন্ডন এখন তৃতীয়বারের মতো অলিম্পিক আয়োজনের জন্য প্রস্তুত। আগের দুইটি আসর ছিল ১৯০৮ ও ১৯৪৮ সালে। সর্বশেষটির প্রস্তুতির কথা জানিয়েছেন লন্ডন অলিম্পিকের প্রধান সংগঠক লর্ড সেবাস্তিয়ান কো। সাবেক দৌড়বিদ কো বলেন, ‘আমরা এখন শেষ মুহূর্তে দাঁড়িয়ে। আমরা অনুশীলন মাঠ থেকে মূল ভেন্যু— সর্বত্র গিয়েছি। স্বেচ্ছাসেবকরা জায়গায় জায়গায় যথাযথভাবে অবস্থান নিয়েছেন। শহর পুরো সাজে সেজেছে। অলিম্পিক মশালও ঠিকমতো এগিয়ে চলেছে।’ বাংলাদেশ এবারের আসরে পাঁচটি ইভেন্টে অংশ নিচ্ছে। তবে সবার আগে লড়াইয়ে নামবেন শুটার রত্না। আয়োজকদেও দেয়া ওয়াইলড কার্ড পেয়ে প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে আসার কারণে বাংলাদেশ দল অবশ্য কোনো পদক নয়, স্রেফ নিজ নিজ ইভেন্টের হিটে ভাল করার জন্যই লড়বে। এদিকে সারা দুনিয়ায় ২০৪টি দেশ থেকে ১০৫০০ অ্যাথলিট ২১টি ক্রীড়ায় এবারের অলিম্পিকে অংশ নিচ্ছে। স্বাগতিক গ্রেট বৃটেন জয়ের মধ্য দিয়ে এ গেমস শুরু হলেও লন্ডন শহরে অলিম্পিক উপলক্ষে অতটা উল্লাস চোখে পড়ল না। অন্তত আমাদের দেশে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপ ক্রিকেটের মাতামাতির সাথে তুলনায়। যদিও পুরো শহরে অলিম্পিকে ঘোচানো বিলবোর্ড, বিভিন্ন নির্দেশিকা দেখে বোঝা যাচ্ছে, তাদের আয়োজনের ব্যাপক প্রস্তুতির বিষয়টি। হিথ্রো বিমানবন্দরে অবশ্য এখন শেষ মুহূর্তে ভিড়। সমানে সারা দুনিয়া থেকে অ্যাথলিট ও ক্রীড়া কর্মকর্তারা এসে নামছেন। গতকালও ৩৭০০ অ্যাথলিট ও কোচকে অভ্যর্থনা জানাতে প্রস্তুত ছিল বিমানবন্দরে কর্মরত অলিম্পিকের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা।